Logo Design

একটি ঝুঁকিপূর্ণ সেতু ও সওজ কর্তৃপক্ষের দায়বদ্ধতা

2 minutes

সাংবাদিক সজীব আকবরঃ

দেশে অনেক সময়ই অনেক রকমের আজব জিনিস দেখা যায়, এর মধ্যে সংশ্লিষ্ট দপ্তর কর্তৃক লাগানো চিকা পোস্টার ঘোষণা সম্বলিত সাইনবোর্ড অন্যতম। আশির দশকে রাজধানীর সদর ঘাটের নিকট ওয়ায়েজ ঘাট নামক স্থানে একটা বড় দেয়াল জুড়ে লেখা একটি ডায়ালগ যে কোনো মানুষের মনেই হাসির খোড়াক জোগাতো। ঐ দেয়ালে লেখা ছিলো,

“ এখানে প্রসাব করিবেন না, করিলে ৫০ টাকা জরিমানা করা হবে” । আদেশক্রমেঃ কর্তৃপক্ষ। আর এর নিচে লেখা ডায়ালগটি ছিলো আরো হৃদয়গ্রাহী। নিচে বিশেষ দ্রষ্টব্যটি লেখা ছিলো এভাবে—

বিঃদ্রঃ “ যাহারা পড়িতে পারেন না , তাহারা পাশের দোকানে খোঁজ করুন”

তো আমার জীবদ্দশাই আমি কখনো এ লেখাটির কথা ভুলতে পারবো না। এখনো মাঝে মাঝে মনে হলে আপন মনেই হাসি। হাসির কোনো যুৎসই কারণ খুঁজে না পেয়ে আমার গিন্নী ভাবে, “ আমি মনে হয় খুব শীঘ্রই পাগল হয়ে যাবো”।

অথচ যে লোকটি পড়াশুনা জানেনা, সে ঐ লেখা পড়ে কিভাবে দোকানদারের সাথে কথা বলবে তা আমি আজো বুঝতে পারিনা।

এ রকম হাস্যরসাত্মক লেখা বা দৃশ্য কখনো কখনো আমাদের মনকে আলোড়িত করে বৈকি। তেমনি কিছুদিন ধরে দেখছি দর্শনা টু মুজিবনগর সড়কে মাথাভাঙ্গা নদীর ধারে সড়ক ও জনপথ বিভাগ একটি হাস্যকর সাইনবোর্ডে ঝুলিয়ে দাযীত্ব সারার অপচেষ্টা চালিয়েছেন। এ সাইনবোর্ডে লেখা আছে “ ঝুঁকিপূর্ণ সেতু” ১০ টনের অধিক যানবাহন চলাচল নিষেধ।।

নির্দেশক্রমেঃ নির্বাহী প্রকৌশলী, সওজ, সড়ক বিভাগ, চুয়াডাঙ্গা।

  • Save
দর্শনা ভায়া কার্পাসডাঙ্গা টু মুজিবনগর সড়কে অবস্থিত গলাইদড়ি ঘাটের ঝুঁকিপূর্ণ সেতু

মাথায় একটা জিনিস কিছুতেই ঢোকেনা এ রকম ঘুম পাড়ানি মাসি পিসি মার্কা একটা সাইন বোর্ড ঝুলিয়ে দিলেই কি দায়ীত্ব পালন করা হয় ? কোন ট্রাকে কত টন মাল যাচ্ছে বা কোন যানবাহনটি ১০ টনের অধিক ওজনের তা মাপার যন্ত্রপাতি তথা ডিজিটাল স্কেল মেশিন বা স্কানার মেশিন দু পাশের কোথাও নেই। নেই কোনো ব্রীজরক্ষী । অথচ সাইনবোর্ড একটা ঝুলিয়ে দিয়ে দায়ীত্ব পালনের কি মহীমায় না দেখাচ্ছেন সওজ কর্তৃপক্ষ!!

এ সেতুটি যেহেতু চলাচলের অনুপযোগী বা ঝুঁকিপূর্ণ, তাহলে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে কিসের এতো অনিহা?

একটা কথা সওজ কর্তৃপক্ষের মনে রাখা দরকার যে, “ যে জাতি পাকিস্তানের সশস্ত্র সেনাবাহিনী আর কামানের সামনে দা, বটি আর লাঠি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়তে পারে, তাদেরকে কি –ঝুঁকিপূর্ণ সেতু লেখা সুড়সুড়ি মার্কা সাইনবোর্ড টানিয়ে দমানো যাবে? এ দেশের চালকরা কি এতটাই সুবোধ ?

মরালঃ ওভার লোডেড কোনো যানবাহনের কারণে আচমকা যদি এটি ভেঙে পড়ে বা এ দুর্ঘটনায় যদি জানমালের ক্ষতি হয়, তাহলে তার দায়ভার কে নিবে? পাবলিক মামলা করবে কার নামে ? এ বিষয়গুলো সচেতন মানুষকে ভাবিয়ে তোলে, করে বিব্রত, চিন্তাগ্রস্থ।

অবশ্য কূম্ভকর্ণের ঘুম যে কবে ভাঙবে, তা আল্লাহ মালুম!!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »
Share via
Copy link
Powered by Social Snap