এনজি’র ব্যবস্থাপনা পরিচালকের ক্ষত-বিক্ষত মরদেহ উদ্ধার

< 1 min read
  • Save

আমাদের সংবাদ / বিশেষ প্রতিবেদক :

ফরিদপুরের মধুখালীতে একটি এনজিও’র ব্যবস্থাপনা পরিচালকের ক্ষত বিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (৩ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার বাগাট ঠাকুরপাড়ার একটি আখক্ষেত থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।
নিহহের নাম লিপি আক্তার (৩৫)। তিনি চন্দনা সঞ্চয় ও ঋণ দান সমবায় সমিতি লিঃ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক। লিপি আক্তার বাগাট মুন্সি পাড়ার মির্জা শহিদুল ইসলামের স্ত্রী।
স্থানীয় ও পারিবারিক সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ৯টার দিকে বাগাট বাজারে অবস্থিত তার এনজিও কার্যালয়ে কাজ শেষে ভ্যানযোগে বাড়ি ফেরেন লিপি আক্তার। বাড়িতে আসার পর তার মোবাইলে একটি কল এলে তিনি পুনরায় বাড়ি থেকে বের হন।
গভীর রাত পর্যন্ত লিপি আক্তার বাড়িতে না ফেরায় তার স্বামী মির্জা শহিদুল ইসলাম লিপি আক্তারের মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করলে ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। পরে শহিদুল ইসলাম ও পরিবারের সদস্যরা বিভিন্নস্থানে খোঁজাখুঁজি করেও তার সন্ধান পায়নি।
শুক্রবার সকালে স্থানীয়রা একটি আখক্ষেতে মরদেহ পরে থাকতে দেখে খবর দিলে পরিবারের লোকজন সেখানে গিয়ে লিপি আক্তারের মরদেহ দেখতে পান। পরে পুলিশ এসে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। এদিকে নিহত লিপি আক্তারকে বহনকারী ভ্যানচালক সৌখিন (১৬) নিখোঁজ রয়েছে।
মধুখালী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, লিপি আক্তারের মাথায় ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এটা একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে তদন্ত চলছে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরও জানান, মামলা দায়েরের বিষয়টিও প্রক্রিয়াধীন রয়েছে
Translate »
Share via
Copy link
Powered by Social Snap