কোটচাঁদপুরে সর্বপ্রথম ইভিএমের মাধ্যমে ভোট দিলেন মেয়র জাহিদ

< 1 min read

কোটচাঁদপুর থেকে এস এম মঈদুল ইসলামঃ

আজ কোটচাঁদপুরে পৌরসভার উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আর এই নির্বাচনে কোটচাঁদপুরে প্রথম বারের মত ভোট গ্রহন চলছে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পদ্ধতিতে। ইভিএম নিয়ে ধারণা কম থাকায় ভোটারদের মধ্যে শুরু হয়েছে এক ধরণের শঙ্কা। এছাড়াও ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট দেয়া এবং এর স্বচ্ছতা নিয়ে সাধারণ ভোটারদের মাঝে রয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। তবে জেলা নির্বাচন অফিস জানিয়েছে ইভিএম-এ জাল ভোট প্রদান বা কেন্দ্র দখলের সুযোগ নেই, একজনের ভোট অন্য জনের দেয়ারও কোন সুযোগ থাকছে না।

  • Save
কোটচাঁদপুরে ভোট প্রদানের আগে মহিলা ভোটারদের শান্তিপূর্ণ লাইন

কোটচাঁদপুরে সর্বপ্রথম ইভিএমের মাধ্যমে উপজেলা নির্বাচনে সর্বপ্রথম ভোট প্রদান করেন কোটচাঁদপুরের পৌর মেয়র জাহিদুল ইসলাম জাহিদ ।

কোটচাঁদপুরে শহর এলাকার একাধিক ভোটার জানান, হঠাৎ করেই ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট দিতে হচ্ছে। ইভিএম-এ কি, বা তাতে কি ভাবে ভোট দিতে হয় সেটাই আমরা ঠিকমত জানিনা।এছাড়াও তাদের এলাকায় তাঁর মতো আরো অনেকেই আছেন যাঁদের ইভিএম সম্বন্ধে পুরোপুরি ধারনা নেই। মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম জাহিদ বলেন , ইভিএম এর মাধ্যমে ভোট গ্রহণ অবশ্যই সরকারের একটি ভাল উদ্যোগ। যতটুকু জানা গেছে ইভিএম-এ ভোট কারচুপি করার সুযোগ তেমন একটা হয় না। তবে এর ব্যবহার সম্পর্কে ভোটারদের সচেতন করতে হবে।

কোটচাঁদপুরে পৌর নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার বলেন, ইভিএম এর মাধ্যমে ভোট প্রদানের অনেক সুবিধা রয়েছে। এ পদ্ধতিতে জাল ভোট দেয়া, কেন্দ্র দখল করে ভোট প্রদান, একজনের ভোট অন্য ব্যক্তি প্রদান বা একবার ভোট দিয়ে থাকলে দ্বিতীয়বার ভোট দেয়া যায় না। নির্ধারিত সময়ের আগে মেশিন চালু হওয়ার সুযোগ নেই। তাই ভোট গ্রহণ শুরু হওয়ার পূর্বে অবৈধ ভোট গ্রহণ বা প্রদানেরও সুযোগ নেই।

এছাড়াও ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে পাসওয়ার্ড সংরক্ষিত বলে প্রিজাইডিং অফিসার অথবা সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার ব্যতিত অন্য কারো পক্ষে মেশিন চালু করা সম্ভব নয়। কোন অবস্থাতেই এমনকি ইভিএম ছিনতাই করে নিয়েও অবৈধভাবে ভোট প্রদান করা সম্ভব নয়।

Translate »
Share via
Copy link
Powered by Social Snap