ত্রাণের আশায় ছোট ছোট সন্তানদের নিয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরছে মা-বাবা

< 1 min read

আমাদের সংবাদ / বিশেষ প্রতিবেদন :

  • Save

করোনা ভাইরাসের কারণে কর্মহীন হয়ে ৫ সন্তানের মুখে খাবার তুলে দিতে অপারগতা স্বীকার করে ত্রাণের আশায় বিভিন্ন জনপ্রতিনিধি ও সরকারি কর্মকর্তার দ্বারে দ্বারে ধন্যা দিয়েও ব্যার্থ হয়েছে। জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার আটাপুর ইউনিয়নের বরণ গ্রামের আবু সুফিয়ান ও মমতা দম্পতি। এখন রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন সরকারি-বেসরকারি ত্রাণের আশায়,

৫ পুত্র সন্তানের জনক আবু সুফিয়ান পেশায় একজন ইটভাটার শ্রমিক। ১০ বছর আগে পারিবারিক ভাবে এই দম্পতির বিয়ে হয়। বিয়ের ১ বছর পর-বাবার কোল আলোকিত করে জন্ম নেয় ছোট্র শিশু মোরসালিন। এরপর ৭ বছর অতিবাহিত হয়ে গেলে ইব্রাহিম নামে আরেক সন্তান জন্ম নেয়।

দস্পতি গত ১৯ সালের ৩১শে ডিসেম্বর জয়পুরহাট ডক্টর ক্লিনিকে সিজার করে এক সঙ্গে ইউছুফ আলী, ইয়াসিন আলী ও ইয়ামিন আলী নামের ৩ সন্তানের জন্ম দেন। মায়ের বুকের দুধ না পাওয়াতে দিনে ১০০গ্রামের ওজনের ১৮০টাকায় দিনে ২টি করে দুধের প্যাকেট কিনতে হয়। যা দিনমজুর বাবার পক্ষে চরম কষ্টসাধ্য।

বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কারণে বেশ কিছু দিন থেকে ইটভাটা বন্ধ থাকায় বেকার হয়ে পড়েছে বাবা। তাই ৫ সন্তানের মুখে খাবার তুলে দিতে হিমশিম খাচ্ছে এই দম্পতি। তাই ত্রাণের আশায় এখন বিভিন্ন মহলে যাচ্ছে, ঘুরে বেড়াচ্ছে রাস্তায় রাস্তায়। তবুও সাড়া দিচ্ছেনা কেউ।

Translate »
Share via
Copy link
Powered by Social Snap