Fiver bussniess

নীলফামারীতে শৈত্যপ্রবাহ কেটে গেছে, তবে ঠাণ্ডার দাপট এখনো রয়েছে

  • Save

 চিলাহাটিনীলফামারী প্রতিনিধি:

প্রচণ্ড শীতে অনেকটা কাবু হয়ে পড়েছে নীলফামারী জেলার বিভিন্ন উপজেলার জনজীবন। রবিবার সকাল থেকে মেঘাচ্ছন্ন আকাশ আর ঠাণ্ডা বাতাসে হিমশিম খেতে হচ্ছে অত্র জেলার বাসিন্দাদের। শীতের এই প্রভাব আরো কয়েকদিন থাকবে। ডোমার উপজেলার বাসিন্দা মুশফিকুর রহমান বলছেন, ”গত কয়েকদিন ধরে প্রচণ্ড শীত। শীতের সঙ্গে বাতাস, বাসার বাইরেই বের হতে পারছি না। কুয়াশায় চারদিক অনেকটা অন্ধকার হয়ে রয়েছে। বাসার বয়স্করা আর শিশুরা অসুস্থ পড়ছে।” তিনি বলছেন, ”গতকালের চেয়ে আজ ঠাণ্ডা আরো বেশি পড়েছে। বাধ্য না হলে বাসার কেউ বাইরে বের হচ্ছে না। অন্যান্য এলাকার তুলনায় জলঢাকায় শীত তুলনামূলক কম পড়লেও এই শৈত্যপ্রবাহে কাবু হয়ে পড়েছে জলঢাকা উপজেলা বাসি। জলঢাকার বাসিন্দা রতন সরকার বলছেন, ”বাধ্য হয়ে প্রচণ্ড ঠাণ্ডার মধ্যে সিএনজিতে করে লালমনিরহাট জেলা গিয়েছিলাম। এখন ঠাণ্ডা লেগে গেছে, জ্বর জ্বর ভাব। প্রচণ্ড ঠাণ্ডার মধ্যে গতকাল আর আজ বের হইনি। আলমারি থেকে লেপতোশক বের করে ব্যবহার করতে শুরু করেছি।” নীলফামারী জেলার অনেক স্থানে রাস্তার পাশে মানুষজনকে কাগজ-কাঠ জড়ো করে আগুন পোহাতে দেখা গেছে। বলছেন, দেশের ওপর দিয়ে একটি যে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ চলছিল, সেটা শেষ হয়ে গেছে। তবে দিনে তাপমাত্রা কম থাকায় তীব্র শীত অনুভূত হচ্ছে। সেটা আরো কয়েকদিন থাকতে পারে। গতকাল সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে নীলফামারীতে ১৮.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

Translate »
Share via
Copy link
Powered by Social Snap