Logo Design Logo Design Logo Design

মনিরামপুরে ছাত্রীকে ধর্ষণ

< 1 min read

মনিরামপুর , যশোর প্রতিনিধিঃ

শোর জেলার মনিরামপুরে দশম শ্রেণির এক মাদ্রাসাছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে মাদ্রাসাটির এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও আরেক শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণে সহযোগিতা করার অভিযোগে মামলা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে ওই দুই শিক্ষক পলাতক।

সোমবার রাতে উপজেলার একটি মহিলা দাখিল মাদ্রাসায় সান্ধ্যকালীন কোচিংয়ের সময় এই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়। ছাত্রীর বাবা গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে ওই দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে মনিরামপুর থানায় মামলা করেন।

অভিযুক্ত দুই শিক্ষক হলেন, তরিকুল ইসলাম (৩২) ও নজরুল ইসলাম (৫০)। তরিকুল শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ এবং নজরুল তাঁকে (তরিকুল) ধর্ষণে সহায়তা করেছেন বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে। তরিকুল ওই মাদ্রাসার কৃষি বিষয়ের শিক্ষক। আর নজরুল সহকারী মৌলভি পদে কর্মরত।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, দাখিল ও জেডিসি পরীক্ষাকে সামনে রেখে ওই মাদ্রাসায় সান্ধ্যকালীন কোচিং চালু করে কর্তৃপক্ষ।। গত ১৫ থেকে ২০ দিন ধরে এই কোচিং চলছিল। প্রতিদিন দুজন করে শিক্ষক ১৭ জনের মতো ছাত্রীকে কোচিং করান। সন্ধ্যা সাতটা থেকে শুরু হয়ে রাত নয়টা পর্যন্ত এ কোচিং চলে। গত সোমবার কৃষি বিষয়ের শিক্ষক তরিকুল ইসলাম ও সহকারী মৌলভি শিক্ষক নজরুল ইসলাম কোচিং করান। রাত সাড়ে আটটার দিকে বিদ্যুৎ চলে যায়। এ সময় তরিকুল ইসলাম ওই ছাত্রীকে মাদ্রাসাসংলগ্ন বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করেন। এই ঘটনায় তরিকুলকে সহায়তা করেন নজরুল।

গতকাল বিকেলে স্থানীয়রা ওই মাদ্রাসায় হামলা চালায়। এ সময় তারা মাদ্রাসার সুপার শাহাদাৎ হোসেনকে অবরুদ্ধ করে রাখেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে বলে স্থানীয়দের সূত্রে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »
Share via
Copy link
Powered by Social Snap