রেকর্ডগড়ার শীর্ষে বার্সেলোনার লিওনেল মেসি

2 minutes
  • Save

লিওনেল মেসির রেকর্ডগড়া ম্যাচে সৌভাগ্যের জয় পেলো বার্সেলোনা। বুধবার চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ‘এফ’ গ্রুপে স্লাভিয়া প্রাগকে ২-১ গোলে হারায় পাঁচবারের চ্যাম্পিয়নরা। দ্বিতীয়ার্ধে প্রতিপক্ষের আত্মঘাতী গোলটিই ব্যবধান গড়ে দেয় ম্যাচে। বার্সার হয়ে প্রথম গোলটি করেন মেসি। তাতে চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে টানা ১৫ আসরে গোল করার অনন্য কীর্তি গড়েন এই খুদে জাদুকর। আর প্রতিযোগিতাটির ইতিহাসে সর্বাধিক ৩৩টি দলের বিপক্ষে গোল করার রেকর্ডে পর্তুগালের ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও স্পেনের রাউল গঞ্জালেসের পাশে বসেন। আরেকটি মৌসুমে গোল পেলেই ইউরোপ সেরার এই আসরে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের রায়ান গিগসের সর্বাধিক ১৬ মৌসুমে গোলের রেকর্ড ছুঁবেন মেসি।
চ্যাম্পিয়ন্স লীগে প্রতিপক্ষের মাঠে খেলা সাম্প্রতিক ম্যাচগুলোতে ধুঁকতে দেখা গেছে বার্সেলোনা।গ্রুপ পর্বের আগের ম্যাচে বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের মাঠে গোলশূন্য ড্র করেছিল তারা। তবে প্রাগের সিনোবো স্টেডিয়ামে ম্যাচের তৃতীয় মিনিটেই লিড নেয় লা লিগা চ্যাম্পিয়নরা। ব্রাজিলিয়ান আর্তুর মেলোর অ্যাসিস্টে চলতি চ্যাম্পিয়ন্স লীগে নিজের প্রথম গোল করেন মেসি। সব মিলিয়ে ইউরোপ সেরার এই আসরের গ্রুপ পর্বে মেসির গোল দাঁড়ালো ৬৭টি। ৫৫তম মিনিটে চেক প্রজাতন্ত্রের ডিফেন্ডার ইয়ান বোরিলের গোলে ম্যাচে সমতায় ফেরে স্লাভিয়া প্রাগ। অবশ্য সমতা ফেরার স্বস্তি মাত্র ২ মিনিট স্থায়ী হয় দলটির। ৫৭তম মিনিটে মেসির ফ্রিকিকে লুইস সুয়ারেজের শট স্লাভিয়া প্লাগের ওলেঙ্কার বুকে লেগে জালে জড়ায়। শেষ পর্যন্ত এই আত্মঘাতী গোল বার্সেলোনার জয় এনে দেয়। চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ২০১৭-১৮ মৌসুম থেকে কেবল আত্মঘাতি খাত থেকে ৭ গোল পেয়েছে বার্সা। এই সময়ে লুইস সুয়ারেজ-উসমান দেম্বেলেও এর চেয়ে কম (৪) গোল করেছেন। আর সর্বাধিক ১৯ গোল করেছেন মেসি। বার্সা যে তার ওপর কতটা নির্ভরশীল, তা এই পরিসংখ্যানেই স্পষ্ট।
চ্যাম্পিয়ন্স লীগের গ্রুপ পর্বে টানা ১৭ ম্যাচ অপরাজিত বার্সা। সবশেষ ২০১৬ সালে ম্যানচেস্টার সিটির কাছে ৩-১ গোলে হেরেছিল আরনেস্তো ভালভার্দের দল। তিন ম্যাচে দুই জয় ও এক ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট নিয়ে ‘ডেথ গ্রুপ’ খ্যাত ‘এফ’ গ্রুপে শীর্ষে কাতালান জায়ান্টরা। তবে দলের পারফরম্যান্সে ঘাটতি দেখছেন কোচ ভালভার্দে। ম্যাচে মেসি-সুয়ারেজদের কয়েকটি সুযোগ নষ্ট করার প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, প্রতিপক্ষের গোলমুখের আমরা কিছুটা ছন্নছাড়া ছিলাম। বল হারানোর পর ওরা যেভাবে আমাদের গোলমুখে ছুটে আসছিল, তাতে বিপদ হতে পারতো।’ প্রথম ম্যাচে ড্রয়ের পর দ্বিতীয় ম্যাচে হার, চাপেই পড়ে গিয়েছিল ইন্টার মিলান। তবে তৃতীয় ম্যাচে স্বস্তির জয় দেখলো ইতালিয়ান জায়ান্টরা। ঘরের মাঠে বরুসিয়া ডর্টমুন্ডকে ২-০ গোলে হারায় কোচ আন্তেনিও কান্তের দল। সান সিরোতে ২২তম মিনিটে ইন্টারকে এগিয়ে দেন আর্জেন্টাইন লাওতারো মার্টিনেজ। চ্যাম্পিয়ন্স লীগে ৩ ম্যাচে ২ গোল করলেন লাওতারো। সব মিলিয়ে ১১ ম্যাচে ৬ গোল আর ২ অ্যাসিস্ট করেছেন ২২ বছর বয়সী এই সেন্ট্রাল ফরোয়ার্ড। ইন্টারের হয়ে ৮৯তম মিনিটে দ্বিতীয় গোল করেন ইতালিয়ান মিডফিল্ডার আন্তেনিও কান্দ্রেভা। ৩ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে ‘এফ’ গ্রুপে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে ইন্টার। সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল গড়ে পিছিয়ে তৃতীয় স্থানে জার্মান ক্লাব বরুসিয়া ডর্টমুন্ড

Translate »
Share via
Copy link
Powered by Social Snap