আত্রাইয়ে ব্ল্যাকমেইল করে টাকা হাতিয়ে নেয়া চক্রের তিন সদস্য গ্রফতার

0
98

আত্রাই (নওগাঁ) সংবাদদাতা: নওগাঁর আত্রাইয়ে ব্লাকমেইল করে টাকা হাতিয়ে নেয়া চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে আত্রাই থানা পুলিশ। গ্রফতারকতরা হলো উপজেলার সাহবগঞ্জে গ্রামের মত নায়েব আলীর ছেলে (চাকুরিচ্যুত) পুলিশ সদস্য আব্দুল মানান (৫০), ছাইফুল ইসলামর ছেলে আতিকুর রহমান স্বাধীন (২২) ও কাবাদ সরকারর ছেলে শামিম সরকার মামুন (২৩)। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধ আত্রাই থানায় মামলা রুজু করা হয়েছে।


মামলার এজাহার সূত্র জানা যায়, গত বুধবার দুপুর সিরাজগঞ্জের তারাশ উপজেলার তারাশ গ্রামের সাহাবর খান (৩৭) আত্রাইয়র সাহগঞ্জে¯ তার ভাগিনার বাড়িতে বেড়াতে আসেন। এ সময় তার ভাগিনা বাড়িতে না থাকায় ভাগিনা বউ তাকে পার্শবর্তী মামার বাড়িতে নিয়ে যান। সেখানে চা-নাস্তা করার সময় মানান তার লোকজনসহ বাড়িতে প্রবেশ করে অনতিক কাজের অভিযোগ সাহাবর খানকে অবরুদ্ধ করে ফেলে। এক পর্যায় সাহাবর খান ও তার ভাগিনা বউ হাফিজা আক্তার হ্যাপিক (২৩) মারপপিট করে। এ সময় স্থানীয় লাকজন সমবেত হলে তারা কোশলে সাহাবর খানকে মাটরসাইকল তুলে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে আটকে রেখে ২ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। এ সময় প্রাণ ভয়ে সাহাবর খান সিরাজগঞ্জ অবস্থানরত তার ভাতিজাকে ফোন করে বিকাশের মাধ্যম ২৫ হাজার টাকা করে দুইবার ৫০ হাজার টাকা প্রতারক চক্রকে প্রদান করেন। এদিকে সাহাবর খানকে ঘটনা¯ল থেকেক তুলে নিয়ে যাবার পর বিষয়টি তারা থানা পুলিশকে অবহিত করন। জানতে পরে আত্রাই থানার ওসি (তদÍ) মাজাম্মল হক কাজি ফার্সসহ সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে সাহাবর খানকে উদ্ধার করেন এবং আব্দুল মানানসহ তিন জনকে আটক করেছে। পরে তাঁদের নিকট থেকে মুক্তিপণ হিসেবে বিকাশ নেয়া ৫০ হাজার টাকার মধ্য ৪৯ হাজার টাকা উদ্ধার করন। এ ঘটনায় সাহাবর খান বাদি হয় আটককত তিনজনসহ মাট ৯ জনকে আসামি করে আত্রাই থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।


আত্রাই থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ বলেন, আব্দুল মানান চাকুরিচ্যুত একজন পুলিশ সদস্য। তিনি পুলিশের দাপট দেখিয় এলাকায় বিভিন অপরাধ মূলক কাজ করেন মর্ম অভিযাগ রয়েছ। তার বিরুদ্ধ আত্রাই থানায় একাধিক মামলা রয়েছ। এ ঘটনায় গ্রফতারকত তিনজনকে গতকাল নওগাঁ জেলা হাজতে প্ররণ করা হয়েছ। অন্যান্য আসামিদর গ্রেফতার পুলিশের অভিযানে অব্যাহত রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here