গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিতে ঝিনাইদহের সড়কে ইটভাটার মাটি রাস্তার উপর ঘটছে দুর্ঘটনা

0
305

আব্দুল্লাহ বাশার(বিশেষ প্রতিনিধি) : গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিতে শীতে কাঁপছে ঝিনাইদহের মানুষ। তিন দিনেও সূর্যের দেখা মেলেনি। সকাল কিংবা রাত সবসময় ঘন কুয়াশা। এতে যান চলাচলে যথেষ্ট বিঘ্ন ঘটছে। ঝিনাইদহ-চুয়াডাঙ্গা-কালীগঞ্জ -কোটচাঁদপুর সড়কের ইটভাটার মাটি রাস্তার উপর পড়ে সৃষ্ট কাদায় প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। শনিবার রোববার ও সোমবার সকাল থেকে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির সঙ্গে হিমেল হাওয়া বইছে। এতে শীতের তীব্রতা আরও বেড়েছে। ফলে বিপাকে পড়েছেন নিম্নআয়ের মানুষ।

ঝিনাইদহের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, থেমে থেমে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। একই সঙ্গে ঘন কুয়াশায় আচ্ছন্ন রাস্তাঘাট, নদণ্ডনদী, খাল-বিল ও ফসলি জমি। শীতবস্ত্রের অভাবে ঠান্ডায় কাঁপছে দরিদ্র মানুষ। জীবিকার সন্ধানে ঘর থেকে বের হওয়া দিনমজুর ও খেটে খাওয়া মানুষ সাধ্য অনুযায়ী নিজেদের জড়িয়ে নিয়েছেন গরম কাপড়ে। তবে গরম কাপড় না থাকায় অনেকে হালকা কাপড়েই বেরিয়ে পড়েছেন কাজের সন্ধানে। শীতবস্ত্রের অভাবে অনেকেই তাকিয়ে আছেন সরকারি ও বেসরকারি সহায়তার অপেক্ষায়। অনেককেই খড় খুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করতে দেখা গেছে। কলেজে স্টান্ড পৌর দোকান দার বলেন, সকাল বেলা ঠান্ডার কারণে দোকানেই আসা যায় না। আবার আসলে দোকানে বসে থাকা যায় না। শীতের জন্য ক্রেতাশূন্য হয়ে থাকে।শহরের রাস্তার পাশে অনেকেই খড়কুটো, টায়ার জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছে। গাড়ি চালক আলমগীর হোসেন বলেন ট্রাক্টরের করে ইটভাটায় মাটি আনার কারণে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে রাস্তায় পড়া মাটি কাঁদায় পরিনত হয়েছে। যার কারণে গাড়ি চালাতে অনেক সমস্যা হচ্ছে। ইতিমধ্যে ছোটখাটো অনেক সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে। যেকোনো সময় ঘটতে পারে বড় দুর্ঘটনা। এর থেকে পরিত্রাণ পেতে প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকার সচেতন মহল।