নদী ভাঙ্গন রোধ কল্পে ব্যবহৃত জিও ব্যাগ বা বালির বস্তা এখন মানুষের কব্জায়।

0
166

মোঃ রোমান আকন্দ,গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি। 

গাইবান্ধা সদর উপজেলা একটি  নদী বিধৌত পল্লীগ্রাম। যার বুক চিরে বয়ে চলেছে ঘাঘট নদী।প্রতিবছর এ নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বন্যার রূপ নেয়।  এ বন্যা  কোন না কোন সময় নদীর পাড় ও রাস্তা ভাঙ্গনের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। যার মধ্যে সবচেয়ে ক্ষতি ও ঝুঁকির মধ্যে থাকে ঘাগোয়া ইউনিয়নের  বাঁধের মাথা খেয়াঘাট। প্রতিবছর বন্যা সংঘটিত হলেই এ খেয়াঘাট সংলগ্ন স্থানটি করুন অবস্থা হয়ে ওঠে। তাইতো এ বছর নতুন করে রাস্তার কাজ  সম্পূর্ণ হওয়ায় খেয়াঘাট সংলগ্ন  স্থানে রাস্তাটিকে ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করার জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহায়তায় বালি ভর্তি জিও ব্যাগ  ফেলানো হয় । কিন্তু দুঃখের বিষয় বর্তমানে এ জিও ব্যাংগ মানুষের কব্জায়। 

সরজমিনে উপস্থিত হলে  খেয়াঘাট সংলগ্ন স্থানে কয়েকজন যুবক  মিলে ঘটনাটি আমার কাছে তুলে ধরে।   সেখানে কয়েকজন লোককে এ বিষয়ে জিজ্ঞাস করলে তারা জানান এ জিও ব্যাগ দিন-দুপুরে মানুষ তাদের বাড়িতে নিয়ে যাচ্ছে।তাদের মতে অনেকে জানায়, যার যেমন দরকার সে সেভাবে এ জিও ব্যাগ তুলছে নিয়ে  যাচ্ছে। কেউ বা জিও ব্যাগের মুখ কেটে বালি ফেলে দিয়ে ব্যাগ সংগ্রহ করছে। কেউবা জিও ব্যাগ ফেলে দিয়ে বালি সংগ্রহ করছে। এ ব্যাপারে নেই কোন এলাকাবাসীর কারো মাথা ব্যাথা। তারা নিজেরা নিজেদের সার্থ  হাসিলের জন্য এমনটা করছে।

তাই স্থানীয় সুএে,স্থানীয় যুবকদের আহ্বান এমন অসাধু উপায়ে গর্হিতমুলক কাজ করলে বন্যার শুরুতেই নতুন রাস্তাটির বেহাল দশা হবে। তাই অসাধু ব্যক্তিদের হাত থেকে রাস্তা ও জিও ব্যাগ উদ্ধার করতে হবে। তাই পানি উন্নয়ন বোর্ডের ও প্রশাসনের দৃষ্টিতে আকর্ষন করছে সচেতন যুবকেরা