নাটোরের সিংড়ায় বিদ্রোহী ইউপি চেয়ারম্যানদের দলীয় পদ দেওয়ার ঘোষনা দিল আইসিটি প্রতিমন্ত্রী – পলক

0
235

আল আমিন,নাটোর প্রতিনিধিঃ দলীয় মনোনয়ন পাওয়া ইউপি চেয়ারম্যানদের বিরুদ্ধে ভোট করে নির্বাচিত হওয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের দলীয় পদ দিয়েছে সিংড়া উপজেলা আওয়ামীলীগ।

শনিবার আইসিটি প্রতিমন্ত্রীর নিজ বাসভবনে সিংড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় চারজন বিদ্রোহী ইউপি চেয়ারম্যান এবং বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহী চেয়ারম্যান পদে ভোট করা আদেশ আলী সরদারকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেয় আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি।

এসময় সিংড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ ওহিদুর রহমান, সিংড়া পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জান্নাতুল ফেরদৌস সহ সম্প্রতি ঘোষণা হওয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

চার বিদ্রোহী ইউপি চেয়ারম্যান হলেন, কলম ইউনিয়নের বিদ্রোহী ইউপি চেয়ারম্যান মইনুল হক চুনু, লালোর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান একরামুল হক শুভ, চামারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান স্বপন মোল্লা, রামানন্দ খাজুরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাকির হোসেন এবং বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী আদেশ আলী সরদার।এসময় আইসিটি প্রতিমন্ত্রী সকলের সংগে আসন্ন জাতীয় নির্বচিন নিয়ে মতবিনিময় করেন।

পরে সভা শেষে নৌকার বিরুদ্ধে ভোট করা বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থীদের উপজেলা আওয়ামীলীগে সদস্যপদ দেওয়ার বিষয়ে ঘোষণা দেওয়া হয় এসময় ফুল দিয়ে বরণ করে নেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আওয়ামীলীগের সিনিয়র নেতারা বলেন, দলে বিদ্রোহীদের পদ দিয়ে উৎসাহিত এবং পুরুস্কৃত করা হয়েছে। এতে করে তৃণমুলের ত্যাগি নেতা কর্মীরা হতাশ হবে। আর আগামী নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের বিরুদ্ধে ভোট করতে যে কেউ উৎসাহিত হবে। বিদ্রোহী চেয়ারম্যানদের দলীয় পদ দিয়ে ঘৃনিত কাজ করা হয়েছে। এতে করে দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গ করা হয়েছে।

এবিষয়ে নাটোর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রমজান বলেন, সিংড়ায় বিদ্রোহী ইউপি চেয়ারম্যানদের পদায়ন করার ঘটনা দু:খজনক, দুভাগ্যজনক।তিনি বলেন, বিগত ইউপি নির্বাচনে যারা দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে ভোট করেছেন, তাদের এখন পর্যন্ত কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে সাধারণ ক্ষমা করা হয়নি। তাদেরকে এখনই দলীয় পদ দেওয়ার সুযোগ নেই। বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে যারা নির্বাচন করেছিল, তাদেরকে দল সাধারণ ক্ষমা করেছে। কিন্তু ইউনিয়ন পরিষদের এই ধরনের সিদ্ধান্ত আসেনি। আমাদের অসংখ্য ত্যাগী নেতা-কর্মী রয়েছে, কিন্তু বিদ্রোহীদের দলে অর্ন্তভুক্ত করার সুযোগ নেই। সিংড়ার বিষয়ে দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সহ কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগকে জানানো হবে। এবং দলীয় শৃংখলা ভঙ্গের বিষয়ে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।