পুকুরে মাটি কাটাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ আহাত ১০

0
293

আব্দুল্লাহ বাশারঃ-বিশেষ প্রতিনিধি : ঝিনাইদহের কালিগঞ্জ উপজেলার বড় ঘিঘাটি গ্রামে পুকুরে মাটি কাটাকে কেন্দ্র করে দুইপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে নারীসহ আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন।
শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
আহতদের মধ্যে চারজনকে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে লাউতলা কলেজের সভাপতি গোলামনবী জানান, মহামান্য হাইকোর্টের একটি রায়ের মাধ্যমে ২০০৮ সালে লাউতলা কলেজ পুকুরটি দখল করে। অদ্যাবদি কলেজ কর্তৃপক্ষ ইদ্রিস আলীর কাছে লিজ দিয়ে রেখেছে।
ত্রিলোচনপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিসের নায়েব শরিফুল ইসলাম জানান, গত সাতদিন আগে ইদ্রিস আলী নামের এক ব্যক্তি ভেকু দিয়ে হুদো সরকারি পুকুরে মাটি কাটছে খবর শুনে ঘটনা স্থলে গিয়ে মাটি কাটা বন্ধ করে দিয়ে আসি।
কালীগঞ্জ থানার ওসি মতলেবুর রহমান জানান, বড় ঘিঘাটি সরকারি জমি হুদোর পুকুর থেকে মাটি কেটে বিক্রি করছিল ইদ্রিস আলী। সেসময় পুকুরের পাড়ের জমির মালিক সোহরাব ও তার লোকজন বাধা দিলে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে উভয়ের লোকজন লাঠি, ধারালো অস্ত্র নিয়ে মারামারিতে লিপ্ত হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সে সময় আহত কয়েকজনকে কালিগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

উল্লেখ্য, ১৯৮৮ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত এক একর ৯৯ শতক জমি মুক্তিযোদ্ধা গোলাম রসুলের নামে সরকার বরাদ্দ দেয়। মুক্তিযোদ্ধা গোলাম রসুলের ছেলে কামাল হোসেনের দাবি লাউতলা কলেজের নামে ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করে পুকুরের মাছসহ পুকুরটি দখল করে নেয়। সেই থেকে কলেজ কর্তৃপক্ষ ইদ্রিস আলীর কাছে পুকুরটি লিজ দেয়। পুকুরের জমি সরকারি হলেও পাড়টি ব্যক্তি মালিকানায়। এ নিয়ে পুকুরের পাড়ে বসবাসকারী লোকজনের সঙ্গে দীর্ঘদিন বিরোধ চলে আসছিল কলেজ কর্তৃপক্ষের।