বিরল ইচথিয়োসিস রোগ থেকে বাঁচতে চায় আব্দুল্লাহ ও আমিনা রিস্কা চালক বাবার মানবিক সাহায্যের আবেদন

0
88

মোঃ মোমিনুল ইসলাম দিনাজপুর সদর প্রতিনিধি : সোনাপুকুর নয়া মোল্লা পাড়া গ্রামের রিস্কা চালক হতদরিদ্র মোঃ ওমর ফারুক ও মোছাঃ খালেদা বেগম এর ইচথিয়োসিস রোগে আক্রান্ত দুই শিশুর চিকিৎসা চালাতে সরকারি সহায়তা চেয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, দিনাজপুর -৪ আসনের সংসদ সদস্য মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান(এমপি),দিনাজপুর জেলা প্রশাসক,পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহি অফিসার (ইউএনও) পার্বতীপুর উপজেলা চেয়ারম্যান,ভাইস চেয়ারম্যান,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, স্থানীয় চেয়ারম্যান ও সমাজের বিত্তবানদের কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।
ভালোবাসার এই পৃথিবীতে ভালোবাসার মানুষের জন্যে আমরা কত কিছুই না করতে পারি। সকলে যদি একটু সাহায্যের হাত বাড়িয়েদি একটি অসহায় পরিবারের জন্যে তাহলে হয়তো মোঃ আব্দুল্লাহ ও ফাহামিদা আক্তার আমিনা সুস্থ হয়ে উঠলে বেঁচে যাবে একটি পরিবার।হেঁসে খেলে বেড়োতে পারবে সবার মাঝে ছোট দুই ভাই বোন দিনাজপুর পার্বতীপুর উপজেলার সোনাপুকুর নয়া মোল্লা পাড়া গ্রামের রিস্কা চালক হত দরিদ্র মোঃ ওমর ফারুকের ছেলে মোঃ আব্দুল্লাহ বয়স এখন(৭) সে স্থানীয় আলহাজ্ব আব্দুস সোবহান কিন্টারগার্ডেন স্কুলের প্লে তে পড়তো। তার ছোট মেয়ে মোছাঃ ফাহামিদা আক্তার আমিনার বয়স(৪)সে এখনো বাবা মা কে ছাড়া কিছুই বোঝে না।
জন্মের পর থেকে এই দুই ভাই বোন বিরল ইচথিয়োসিস রোগে আক্রান্ত। এই বিরল রোগে পৃথিবীতে প্রায় ১২.৫ হাজারের মধ্যে ১ জন আক্রান্ত হয় । অসহায় পিতা রিক্সা চালক ছেলে মেয়ের চিকিৎসার্থে আত্মীয়স্বজন ও গ্রামবাসীর সাহায্য সহযোগীতা নিয়ে সে সময় চিকিৎসা সেবা দিয়েছিলেন। ছেলে মেয়ের চিকিৎসার জন্য পার্বতীপুর ল্যাম্প হাসপাতালে ভর্তি করান। কিন্তু অবস্হার তেমন কোন পরিবর্তন হয়নি।তার বাবা বলেন,চিকিৎসক পরামর্শ দিয়েছে ঢাকায় নিয়ে গিয়ে বড় ডাক্টার দেখাতে। টাকার অভাবে বড় ডাক্তার দেখাতে না পেরে ১৩.৮.২০২০ সালে তাদের চিকিৎসা বন্ধ করে দেই। ছেলে মেয়েকে ভালো করার জন্য অনেক চেষ্টাই করে যাচ্ছি কিন্তু অর্থের অভাবে কোন মতেই পারছিনা সন্তানদের চিকিৎসা করতে।
বর্তমানে বাড়ীতেই যে যেমন বলছে তেমনি চলছে আব্দুল্লাহ ও আমিনার চিকিৎসা। গ্রামবাসী ঢাকায় গিয়ে চিকিৎসা করার কথা বললেও টাকার অভাবে নিয়ে যেতে পারছেন না দরিদ্র পরিবারটি। ২০১৪ সাল থেকে শুরু করে ২০২১ মিলিয়ে এ পর্যন্ত ১,৯০,০০০ হাজার টাকা খরচ হয়ে গেছে আব্দুল্লাহ ও আমিনার চিকিৎসা করাতে।দরিদ্র পিতা মাতামাতার পক্ষে শিশু সন্তানদের ব্যায় বহুল বিরল ইচথিয়োসিস রোগের চিকিৎসা চালাতে গিয়ে হিমশিম খেয়ে নিদারুন কষ্টে মানবেতর জীবনযাপন করছে অসহায় পরিবারটি। পুরোপুরি আব্দুল্লাহ ও আমিনা কে সুস্হ করে তুলতে কতো টাকা লাগতে পারে তা জানেনা অসহায় পরিবারটি।
আব্দুল্লাহ ও আমিনার পিতা রিক্সা চালক মোঃ ওমর ফারুক আরো বলেন, বলেন,সারাদিন রিক্সা চালিয়ে রোজগার হয় ২৫০/৩০০টাকা। সংসারে আব্দুল্লাহ ও আমিনার ছাড়াও স্ত্রী রয়েছে, সব মিলিয়ে সংসার চালাতেই নুন আনতে পান্তা ফুরনোর অবস্থা।সেখানে দুই সন্তানের এমন নাম না জানা বিরল ইচথিয়োসিস রোগের চিকিৎসার খরচ চালাতে আমার পক্ষে খুবই কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। আত্মীয় স্বজন, গ্রামবাসী ও নিজের কষ্টার্জিত টাকায় চিকিৎসা সেবা চালিয়েছি আর তো সম্ভব হচ্ছেনা।দিনাজপুর পার্বতীপুর উপজেলার বেলাইচন্ডি ইউনিয়নের ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলাম দুলাল আমি বাচ্চা দুটিকে চিনি আমার বাসার পাশেই তাদের বাসা তারা জন্মের পর থেকে এই বিরল রোগটিতে আক্রান্ত । এই পরিবারটির পক্ষথকে আমর কাছে কখনো আসেনি। এই বাচ্চা দুটির বাবা আমার কাছে আসলে আমি সামজ সেবার মাধ্যমে তাদের সহজোগিতা দেয়ার চেষ্টা করব।
দিনাজপুর জেলা পার্বতীপুর উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা তাপস রায় তাদের পরিবার থেকে দুই ভাই বোন দিনাজপুর মেডিকেল ও জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হলে হাসপাতাল সমাজ সেবা অফিস হতে তাদের চিকিৎসার ব্যাবস্থা করে দিব আমরা।দিনাজপুর সিভিল সার্জন অফিসার আব্দুল,বাচ্চা দুটির ছবি দেখে বুঝতে পেরেছে এটি একটি জটিল স্কিন রোগ । আমি মনে করি এটা চিকিৎসার জন্য আমাদের উচ্চতর প্রতিষ্ঠান বিশেষ করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও বঙ্গবন্ধু মেডিকের শ্বিবিদ্যালয়ে চর্ম ও যৌন রোগ বিভাগে যোগাযোগ করা যায় তাহলে বাচ্চা দুটির চিকিৎসা ভালো এবং সফল হবে বলে আমি আশা করি দিনাজপুর জেলা পার্বতীপুর উপজেলা হতে দিনাজপুর সদর প্রতিনিধির সর্বপ্রথম সংবাদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here