রামগড়ে এক কিশোর কর্তৃক ধর্ষণের স্বীকার হয়ে কিশোরী অন্তঃসত্ত্বা।

0
123

রামগড় প্রতিনিধিঃ পার্বত‍্য জেলার রামগড় পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের চৌধুরী পাড়া গ্রামে ছোট বোনের বান্ধবী (১৩) কিশোরীকে ধর্ষণে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বার ঘটনায় ভিটকিম কিশোরী নিজেই বাদী হয়ে মো: রাহিম (১৫) নামে এক কিশোরের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে রামগড় থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেছেন।এবং মামলা হওয়ার পর মঙ্গলবার (১৮ মে) ধর্ষিতা কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় ধর্ষক রাহিম বর্তমানে পলাতক রয়েছে।এলাকাবাসী ও পুলিশ সুত্রে জানা গেছে ধর্ষিতা কিশোরী রামগড় চৌধুরী পাড়া এলাকার মৃত মোস্তাফা প্র :(হক সাব) এর মেয়ে,ধর্ষক মোঃ রাহিম একই এলাকার প্রবাসী মোহাম্মদ নুরু’র ছেলে।

রামগড় থানায় মামলার এজহারে ধর্ষিতা জানান, অভিযুক্ত রাহিম এর ছোট বোন আখী তার বান্ধবী, এই সুবাদে তাদের বাড়ীতে যাওয়া আসা হতো। প্রতিদিনের মত গত ২ ডিসেম্বর বিকেল আনুমানিক ৩টায় বান্ধবীর খোঁজে তাদের বাড়ীতে গেলে অভিযুক্তের কাছে তার বোনের কথা জানতে চায়। অভিযুক্তের বোন বাসায় না থাকা সত্বেও মিথ্যা বলে সে ঘরের ভিতর রয়েছে ভিকটিমকে জানালে সে বান্ধবীর খোঁজে ঘরের ভিতর গেলে রাহিম ঘরের দরজা বন্ধ করে ভিকটিমকে ফুসলিয়ে বিভিন্ন প্রলোভন ও ভয়ভীতি দেখিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে।

ভিকটিম আরো জানান, তার মা ও বোন বিভিন্ন সময়ে নানার বাড়ীতে থাকার সুযোগে ঘরখালি থাকায় গত ২ ডিসেম্বর থেকে বিভিন্ন সময়ে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। পরবর্তীত্বে গত ৫ মে ২১ইং কিশোরীর শারীরিক অবস্থা খারাপ দেখে তার মা ডাক্তারের স্বরনাপন্ন হলে জানতে পারেন তার মেয়ে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

এদিকে অভিযুক্ত রাহিমের মা রাশেদা আক্তার ঘটনা অশ্বীকার করে বলেন, তার ছেলের বিরুদ্ধে আনা সকল অভিযোগ মিথ্যা। সে রামগড় আইডিয়াল স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণীতে পড়ে। অভিযোগকারী তাদের থেকে আর্থিকভাবে সুবিধা নিতে পরিকল্পিতভাবে মামলা করেছে বলে জানান তিনি।

চৌধুরীপাড়া সমাজ কমিটির সভাপতি ও রামগড় উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার ফারুক জানান, তারা উভয় পরিবার অভিযোগ নিয়ে এলে বয়স কম ও কিশোরী অন্তঃসত্বা হওয়ায় আইনের আশ্রয় নিতে পরামর্শ দিয়ছি।

রামগড় থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ সামসুজ্জামান জানান, ‘ধর্ষণের অভিযোগে রামগড় থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। ওই অন্তঃসত্ত্বা কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে’।