শরীয়তপুরের নড়িয়া দাফনের ৪৫ দিন পর মরদেহ উত্তলন

0
347

শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলা দাফনের ৪৫ দিন পর মরদেহ উত্তলন
ময়নাতদন্তের জন্য কবর থেকে হারুন শেখ (৪৭) নামে এক ব্যক্তির মরদেহে উঠানো হয়েছে। আদালতের নির্দেশে সোমবার (১৩ মার্চ) সকাল ১১টায় নির্বাহী ম্যাজিস্টেট মো. মামুন শরিফের উপস্থিতিতে কবর থেকে মরদেহ উত্তোলন করে পুলিশ। হারুন শেখ নড়িয়া পৌরসভার ৫নং ওয়াডের কলুকাঠি গ্রামের মৃত জবেদ আলি শেখের ছেলে। তিনি পেশায় রিকশা চালক ছিলেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) আবির হোসেন জানান, গত ২৫ জানুয়ারি সকালে বাড়ির পাশের খালের মধ্যে হারুন শেখের লাশ পাওয়া যায়। তার কোন পুত্র সন্তান না থাকায় স্বাভাবিক মৃত্যু মনে করে কোন অভিযোগ ছাড়াই হারুন শেখের মরদেহ দাফন করে তার স্বজনরা। পরবর্তীতে হারুন শেখের স্ত্রী পেয়ারী বেগমের সন্দেহ হয় তার স্বামীকে হত্যা করা হয়েছে এ মর্মে দাফনের ১৫ দিন পর তিনি আদালতে মামলা দায়ের করেন। পরে গত ২০ ফেব্রুয়ারী নড়িয়া থানায় মামলা রুজু হয়। মামলা নম্বর-১৪।

আবির হোসেন বলেন, দাফনের ৪৫ দিন পর আদালতের নির্দেশে নির্বাহী ম্যাজিস্টেট মো. মামুন শরিফের নেতৃত্বে মুলফৎগঞ্জ মাদ্রাসা কবরস্থান থেকে হারুন শেখের মরদেহ উত্তোলন করা হয় এবং মৃত্যুর প্রকৃত রহস্য উদঘাটনে ময়নাতদন্তের জন্য কাগজপত্র সহ মরদেহ শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।