হিজাব, বিকিন জিন্স শাড়ি পরবেন কি না সে সীমান্ত শুধুমাত্র নারীদের, হিজাব নিয়ে মুখ খুললেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী

0
429

ভারতের দক্ষিনাঞ্চলের রাজ্যে কর্নাটকে একটি কলেজে ভর্তি হবার সময় মুসলিম পরিবারে মেয়ে মুশকান খাতুনের উপর বিদ্রুপ করে পিছু নেয় বিশ্ব হিন্দু পরিষদের ছাত্র সংগঠন অখিল ভারতীয় ছাত্র লীগের সদস্যরা। এবং এই ছাত্র সংগঠনের মাথায় থাকে আর এস এস এবং তার দোসর বিজেপি। যদিও এই কর্নাটক রাজ্যের ক্ষমতায় আসেন বেআইনি ভাবে বিজেপি। সেখান থেকে ঐ রাজ্যের মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষের উপর একের পর এক বিধিনিষেধ আরোপ করতে থাকে বিজেপি সরকার। এবং মহিলাদের হিজাব পরে ইস্কুল ও কলেজ যাওয়ার উপর বাধানিষেধ আরোপ করা হয়। এর প্রতিবাদ চলছে চারিদিকে।

তার মধ্যে এদিন একটি কলেজে ভর্তি হতে যাওয়ার সময় একদল উৎশৃঙ্খল বিজেপি র ছাত্ররা মুশকান খাতুন লক্ষ্য করে গো ব্যাগ গো ব্যাগ হিজাব বলে ধেয়ে আসেন। সেই সময় ঐ ইস্কুল ছাত্রী নারাইয়েক তকবির আল্লাহ হুআকব্বর দিতে দেখা যায়। এই ছবিটি ভিডিও ভাইরাল হয়ে সারা ভারতের সাথে সারা বিশ্বের কাছে পৌঁছে যায়। চারিদিক থেকে নিন্দার ঝড় ওঠে। সেই ঝড়ের কবলে আজ সারা ভারতের বিভিন্ন যায়গায় মুসলিম নারীরা রাস্তায় নেমে আন্দোলন শুরু করে দিয়েছে। এই মুসলিম নারীদের অধিকার কে সম্মান জানিয়ে দেয় ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক শ্রীমতী প্রিয়ঙ্কা গান্ধী।

তিনি বলেন কোন মহিলা বিকিন, জিন্স প্যান্ট ও শাড়ি শালোয়ার এবং হিজাব পরবেন সেটি সেই নারীর মৌলিক অধিকার মধ্যে পড়ে। এই ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ করেন। সেই সঙ্গে তিনি বলেন যে ভারতের অনেক রাজনৈতিক দলের নেত্রী আছেন যারা লোক ও মুসলিম দরদী বলে হিজাব পরে ইফতার পার্টিতে গিয়ে মুসলিম ভাইদের সাথে ইফতার করেন সেই সব নেত্রী এবং মুখ্যমন্ত্রীরা এই ঘটনার পর নীরব কেন তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন প্রিয়ঙ্কা গান্ধী।।