৬০টি যুদ্ধ বিমানে গাজায় ১২২টি শক্তিশালী বোমা নিক্ষেপ : সময় নিয়েছে ২৫ মিনিট

0
154
গাজায় ১২২টি শক্তিশালী বোমা নিক্ষেপ

ফিলিস্তিনের গাজায় ভয়াবহ হামলা অব্যাহত চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েলি সৈন্যবাহিনী। ১৮ মে(মঙ্গলবার) রাত ১০টা টার মধ্যে মাত্র ২৫ মিনিটে ৬০টি যুদ্ধ বিমান ব্যবহার করে গাজা উপত্যকার বিভিন্ন এলাকায় মোট ১২২টি শক্তিশালী বোমা নিক্ষেপ করা হয়।

এ হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। তারা গাজা উপত্যকায় হামাসের সুড়ঙ্গ ও ঘাঁটি চিহ্নিত পরিচিত অন্তত ৬৫টি স্থানে হামলার দাবি করেছে ইসরাইলি বাহিনী (সূত্র আল জাজিরার)।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, ইসরায়েলি হামলার চালানোর পর থেকে পাল্টা প্রতিরোধ হামলা চালিয়েছে ফিলিস্তিনের ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস । তারা ইসলায়েলকে লক্ষ্য করে রকেট ছুঁড়ছিল। এক্ষেত্রে ইসরাইলকে প্রতিরোধ করতে ভূগর্ভস্থ কিছু সুড়ঙ্গ ব্যবহার করে আসছিল হামাস। তাদের বিভিন্ন এলাকায় এসব সুড়ঙ্গ চিহ্নিত করে এবং সেই লক্ষ্য করে মঙ্গলবার রাতে বিমান হামলা চালায় ইসরায়েলি বাহিনী।

ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর মুখপাত্র হিদাই জিলম্যান দাবি করেন, মাত্র ৩০ মিনিটে তারা ৬৫টি ভূগর্ভস্থ কিছু সুড়ঙ্গে আঘাত হানতে সক্ষম হয়েছে। সেইসাথে দীর্ঘ সুড়ঙ্গ ধ্বংস করতেও সক্ষম হয়েছে ইসরায়েলি বিমান বাহিনী।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ‘যুদ্ধবিরতির’ আহ্বানের দিয়েছিলেন তার পর ও গাজা উপত্যকায় বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েল। হামলায় নিহত ফিলিস্তিনিদের সংখ্যা বেড়ে শিশু সহ ২২০ জনে দাঁড়িয়েছে।

১৯ মে বুধবার আল জাজিরা বিবৃতিতে জানিয়েছে, অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায়। হামাসে ইসরায়েলের অব্যাহত বিমান হামলা দ্বিতীয় সপ্তাহে সালমান। গাজায় ইসরায়েলি হামলায় এখন পর্যন্ত ৬৩ জন শিশু সহ অন্তত ২২০ ফিলিস্তিনি নাগরিক নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত হয়েছেন দেড় হাজার ফিলিস্তিনি।

অপরদিকে ফিলিস্তিনের ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের পাল্টা হামলায় ইসরায়েলের দুই শিশুসহ তিন সেনা মোট ১২ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে একজন ভারতীয় নারী রয়েছেন। এছাড়া ইসরায়েলের অন্তত ৩০০ জন আহত হয়েছেন।